সাক্ষাৎকার

জুন ২০, ২০১৪, ১২:০৮ অপরাহ্ন

বোর্ড চাইলেই অধিনায়ক পরিবর্তন হতে পারে: মুশফিক

গিয়াস উদ্দিন সজিব

আর কত! আর কতদিন মেনে নিতে হবে এমন পরাজয়। মেনে নিতে নিতে যেন ধর্য্যের বাঁধ ভেঙ্গে গিয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমিদের। কলঙ্কজনক পরাজয় না সহ্য করতে পেরে করেছে মানববন্ধনও। হারতে হারতে ক্রিকেটপ্রেমিদের সাথে মুশফিক যে ক্লান্ত। সংবাদ সম্মেলনে এসে হারের ব্যাখা দিতে হয় তাকেই। তাইতো এখন আর হারের নতুন কোনো ব্যাখা নেই তার মুখে। ভারতের বিপক্ষে সিরিজ হারার কোনো ব্যাখা না দিয়ে তিনি বলেন, নতুন কাউকে যোগ্য মনে করলে বোর্ড সুযোগ দিতে পারে। এখানে আমার কিছু বলার নেই কিংবা করার নেই। এ ছাড়া শেষ ২টি ওয়ানডে ম্যাচের উইকেটের প্রশংসা করেছেন তিনি। সাংবাদিকদের সাথে প্রশ্নউত্তরে তার কথাগুলো তুলে ধরা হল-

প্রশ্ন: গত বছর একটি সিরিজ হারের পর আপনি অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন, এবারও কি এমন কিছু ভাবছেন?

মুশফিক: ওই সিদ্ধান্ত আমার জন্য ভুল ছিল। আমি নিজেও ফিল করেছি ওটা একটি মিসটেইক ছিল। অধিনায়কত্বের এই সিদ্ধান্তটা আসলে আমার হাতে নয়; এটা বোর্ডের হাতে। তারা যদি ভাবে আমার চেয়ে যোগ্য কেউ দলে আছে এবং এর ফলে যদি দলের উপকার হয় তবে কেন নয়। আমি ছেড়ে দেব, কোনো সমস্যা নেই।

প্রশ্ন : বাউন্সি উইকেটে আমাদের পেসার ভালো করেছে কিন্তু ব্যাটসম্যানদের কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি হতে হয়েছে। এ প্রেক্ষিতে আপনি কোন ধরনের উইকেট প্রত্যাশা করেন?

মুশফিক: ব্যাটিংয়ের সমাধান করতে গেলে এই ধরনের উইকেটেই খেলা উচিত। আমরা সর্বশেষ ২টি ম্যাচ খেলেছি যে ধরনের উইকেটে সেগুলো পেসারদের জন্য ফ্রেন্ডলি উইকেট। আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানরা এই ধরনের উইকেটে খেলে অভ্যস্ত নয়, সে কারণেই একটু সমস্যা হয়েছে। বিশ্বের প্রায় সব দেশই এই ধরনের উইকেটে খেলে অভ্যস্ত সবাই। আমাদের একটাই উপায় এই ধরনের উইকেট প্রস্তুত করা। অনুশীলনে এমন উইকেট বিশেষ করে লংগার ভার্সনে এই ধরনের উইকেট বানালে টেস্টে আমাদের অনেক উপকার হবে।

প্রশ্ন : শামসুরকে বসিয়ে তামিমকে খেলানোর যুক্তি কি ছিল?

মুশফিক: শামসুর আমাদের ব্যাকআপ ক্রিকেটার ছিল। তামিম হয়ত ওর মতো পারফরমেন্স করতে পারেনি। আমাদের মনে হয়েছে আরও একটা সুযোগ ওর প্রাপ্য। এ ছাড়া এনামুল সেরা খেলোয়াড়। এই সিরিজে হয়ত দুটো ম্যাচ খারাপ খেলেছে। সাকিব ভালো খেলছিল। আমরা ভেবেছিলাম তামিম ও এনামুলের কম্বিনেশনটা ভালো হবে। এ কারণেই বৃহস্পতিবারের ম্যাচে তামিমকে সুযোগ দেওয়া।

প্রশ্ন: এই সিরিজ থেকে কি পেলেন ও ভারত দলের তরুণ ক্রিকেটাররা কেমন করেছে?

মুশফিক: আমরা জানি যে, সিরিজ হেরে গেছি। কিন্তু আমাদের পেস বোলাররা অনেক ভালো বল করেছে। শেষ ২টি ম্যাচে তারা ভালো করেছে। তাসকিন খুব ভালো করেছে। মাশরাফিও ভালো করেছে, তার সঙ্গে ছিল আল-আমিন এবং সাকিব। আমাদের বোলিং আক্রমণ ভালো ছিল। আর যদি ওদের ব্যাটিংয়ের কথা বলেন তাহলে বলব তরুণ হিসেবে দলটি ভালো করেছে। সুত্র: ওয়েবসাইট।


নিউজ পেজ২৪/সজিব