সম্পাদকীয়

ডিসেম্বর ১৩, ২০১৪, ৭:৪৮ অপরাহ্ন

ডিসিসি নির্বাচন নিয়ে রাজনীতির শেষ কোথায়!

সর্বশেষ ২০০২ সালে ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন হয়েছিল। এরপর ২০০৭ সালে মেয়াদ শেষ হলেও নির্বাচন দেয়া হয়নি। সীমানা পূণনির্ধারণ সংক্রান্ত জটিলতায় ঝুলে আছে ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিন সিটি করপোরেশনের নির্বাচন।

নির্বাচন কমিশন বরাবরের মতই দায় চাপাচ্ছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের ওপর। মন্ত্রনালয় কয়েকটি এলাকা নিয়ে সৃষ্ট সীমানা জটিলতা নিরসন করলে কমিশন দ্রুত নির্বাচন দেবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ।

মন্ত্রীপরিষদ বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ডিসিসি নির্বাচন নিয়ে যে আগ্রহ দেখিয়েছে তাতে দ্রুত সীমানা সংক্রান্ত জটিলতা কেটে যাবে বলে আশা করা যায়। কিন্তু কেউ কেউ বলছেন প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহের বিষয়টি নিছক রাজনৈতিক।

বিএনপির আন্দোলনের ইস্যুকে মোকাবেলা করতে এই নির্বাচনের চিন্তা করছে সরকার - এমন মত অনেকের। আর যদি তাই হয় তাহলে রাজনৈতিক স্বার্থের কাছে ডিসিসির নির্বাচন আবারো পন্ড হতে পারে। তফসিল ঘোষণার পরও সরকার যদি মনে করে যে কোন অজুহাতে নির্বাচন বন্ধ করতে পারে। যেমনভাবে বন্ধ হয়েছিল আগের বারও।

আর এভাবে যদি দুই ডিসিসি নির্বাচন রাজনৈতিক স্বার্থে কাছে জিম্মি হয়ে হয়ে যায় নাগরিকরা যাবেন কোথায়। জনপ্রতিনিধিত্বহীন ডিসিসি নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হলেও জবাবদিহিতার সুযোগ নেই। ফলে অনিয়ম, দুর্নীতি আর নোংরা রাজনীতিতে ছেয়ে যাচ্ছে নগর ভবন। যার অস্তিত্বই অর্থহীন হয়ে উঠছে!

নিউজ পেজ২৪/একস/এইচএস