মার্চ ২০, ২০১৫, ১২:৫৩ অপরাহ্ন

আট সেকেন্ডে ২০ তলা ভবন ভূমিসাৎ!

নিজস্ব প্রতিবেদক

একটি বহুতল ভবন তৈরি করতে যেমন বেশ সময় লাগে, তেমনি সেটি ভেঙে ফেলতেও কিছু সময় লাগে। হঠাৎ করে চাওয়া মাত্র সেটাকে ভেঙে মাটিতে মিশিয়ে দেওয়া যায় না। নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ায় ধীরে ধীরে করতে হয় ভাঙার কাজ। কিন্তু যুক্তরাজ্যের হলের ২০ তলা একটি ভবনকে সম্প্রতি মাত্র আট সেকেন্ডে সম্পূর্ণ ভেঙে ফেলা হয়েছে। পাশে একটি সুপারমার্কেটের জন্য জায়গা করতে ভবনটি ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

হাইকোর্ট নামের এই ভবনটি একসময় ছিল হলের অর্চার্ড পার্ক স্টেটের সবচেয়ে উঁচু ভবন। প্রায় পঞ্চাশ বছর আগে আবাসন সমস্যার সমাধান করতে এই ভবনটি নির্মিত হয়েছিল। বিশ তলা ভবনটির উচ্চতা ছিল ১৯০ ফুট। গত রোববার বিকেলে বিস্ফোরক ব্যবহার করে ভবনটি ভেঙে ফেলা হয়। অর্চার্ড পার্ক স্টেটের জন্য একটি নতুন শপিং সেন্টার, একটি কেয়ার হোম এবং সহজলভ্য আবাসনের ব্যবস্থা করতে ষাটের দশকের এই ভবনটি ভেঙে ফেলা হলো।

অবশ্য যারা ভবনটিকে তিলে তিলে গড়ে উঠতে দেখেছেন বা বহু বছর ধরে চলার পথে দেখে আসছেন তাদের কাছে এত অল্প সময়ে ভবনটির ভূমিস্যাৎ হওয়ার বিষয়টি খানিকটা বিস্ময়েরই। ৫৮ বছর বয়সী সামান্থা ক্লার্ক বলেন, যখন ভবনটি তৈরি হচ্ছিল তখন আমরা উত্তর হলে থাকি। আমি তখন বেশ ছোট। আমার বেশ মনে আছে ভবনটি তৈরির সময় আমরা খুব উৎসাহ পাচ্ছিলাম। কারণ এর ফলে আবাসন সংকট নিরসন হবে। আজ ভবনটি ভেঙে ফেলার সময়ও উচ্ছ্বাস করা হচ্ছে। এটা আসলেই খুব আবেগাক্রান্ত ব্যাপার।

১৯৬৯ সালে ভবনটি নির্মিত হয়। তখন থেকেই এটা শহরের অন্যতম উঁচু ভবন। এখন সেখানে চারশ'র বেশি সহজলভ্য ফ্ল্যাট তৈরি করা হচ্ছে। ৬১ বছর বয়সী জিম রোলস বলেন, আমি বিশ্বাসই করতে পারছি না যে ভবনটি তৈরি করতে এক যুগ লেগেছিল তা এত অল্প সময়ে ভেঙে ফেলা হয়েছে। এক মিনিট আগেই এটা ছিল, এক মিনিট পরেই তা নেই। হল সিটি কাউন্সিলের কাউন্সিলর জন ব্ল্যাক বলেন, অর্চার্ড পার্কের বাসিন্দাদের জন্য এটা খুব উত্তেজনাপূর্ণ মুহূর্ত। এই হাইকোর্ট ভবনটি এক সময় এখানকার সর্বোচ্চ ভবনগুলোর একটা ছিল। সুতরাং এটা ভেঙে ফেলাও বেশ বড় ব্যাপার। কিন্তু অর্চার্ড পার্কের জন্য আমাদের মাস্টারপ্ল্যান এই স্টেটে ব্যাপক পরিবর্তন নিয়ে আসবে। ডেইলি মেইল অবলম্বনে।

নিউজ পেজ২৪/ইএইচএম