অগাস্ট ১৯, ২০১৫, ৯:৫৫ পূর্বাহ্ন

‘দেখ, ভালোবাসলে এমন হয়’

নিউজপেজ ডেস্ক

সমস্ত শরীরে রক্ত। কল্পনায় রক্তাক্ত দানবের যেমন চেহারা ফুটে ওঠে, ঠিক যেন তেমন দুই দানব হুংকার দিয়ে বলছে, ‘দেখ, ভালোবাসলে পরিণাম এমন হয়।’ তাদের হাতে দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন করা একটি মাথা। মাথাভরা চুল ভিজে গেছে রক্তে। চুল ধরে মাথাটি ঝাঁকিয়ে গ্রামবাসীকে দেখাচ্ছে তারা।

এমন বর্বরতা সমাজে লালিত হচ্ছে। ভয়ংকর! পরিবার ও সমাজের সম্মান বাঁচানোর দোহাই দিয়ে এ ধরনের হত্যাকাণ্ড ঘটে চলেছে। ভারত ও পাকিস্তানে বাবা-ভাইদের হাতে প্রেম করার অপরাধে অথবা বিনা অনুমতিতে বিয়ে করার দায়ে জীবন দিতে হচ্ছে ছেলেমেয়েদের। ওইসব পরিবার ও সমাজের দাবি, সম্মান রক্ষার্থে অবাধ্য ছেলেমেয়েদের হত্যা করাও যায়। একে বলা হয়, ‘অনার কিলিং’।

ভারতের উত্তর প্রদেশের শাহঝানাপুর জেলার বামানি চৌকি গ্রামে মঙ্গলবার অনার কিলিংয়ের নামে এই নৃশংস হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে। ফুল জাহান নামে এক মেয়ের শিরশ্ছেদ করেছে তার দুই ভাই গুল হাসান (২৫) এবং নানহি (২০)। পরে ধড়হীন মাথাটি নিয়ে গ্রামে ঘুরে ঘুরে দেখিয়েছে তারা।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, ফুল জাহানের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, সে তার চাচাতো ভাইয়ের সঙ্গে প্রেম করে। তাকেই বিয়ে করতে চায়। সোমবার বিকেলে ওই চাচাতো ভাইয়ের বাড়িতে দেখা যায় ফুল জাহানকে। তার দুই ভাই তাকে সতর্ক করে, ওই বাড়িতে আর কখনো না যেতে এবং চাচাতো ভাইয়ের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে। ফুল জাহান তাদের কথা শোনেনি। সে রাতে তার প্রেমিকের (চাচাতো ভাই) বাড়িতে ছিল। পরের দিন সকালে গুল হাসান ও নানহি ফুল জাহানকে ধরে এনে ধড় থেকে মাথা আলাদা করে ফেলে। পরে বুনো উল্লাসে মেতে সেই মাথা গ্রামবাসীকে দেখায় তারা এবং বলতে থাকে, ‘আমার বোন প্রেম করেছিল। দেখ, ভালোবাসলে কেমন পরিণতি হয় হয়।’

এই দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে কোনো আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কি না, তা টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়নি।


নিউজ পেজ২৪/ইএইচএম