লাইফ স্টাইল

অগাস্ট ৩১, ২০১৫, ৫:২৭ অপরাহ্ন

মেদ কমাতে যা আপনার অবশ্যই করণীয়!

নিউজপেজ ডেস্ক

আপনি ছোটবেলায় শুনেছেন ‘মেদ ভুড়ি কী করি’। বড়বেলায়ও নিশ্চয় তা-ই শুনছেন। বোনাস হিসেবে আপনার শরীরেও জমেছে মেদ। এখন ভাবছেন ‘মেদ ভুড়ি কী করি’!

শরীরে চর্বি জমা আসলেই সিরিয়াস রকমের সমস্যা। এ নিয়ে আজকাল প্রচুর লেখালেখি হচ্ছে। আবার নানা কারণে আমরা বিষয়টিকে জটিলও করে ফেলি। প্রথম কথা হল আমরা আসলে কী করতে চাই— তা জানতে হবে। দ্বিতীয়ত যে নিয়ম মানা শুরু করেছি, তার ব্যতায় ঘটানো যাবে না। এবার জেনে নিন ৮টি ভাল অভ্যাসের কথা, যা মেদ কমাতে সাহায্য করবে—

লেবুর শরবতে শুরু করুন সকালটা। এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস ও লবণ মিশিয়ে পান করুন। যা হজম ও বিপাক প্রক্রিয়াকে সাহায্য করে। প্রতিদিন পান করুন এ উপকারি পানীয়।

সাদা ভাত ও গমের আটা এড়িয়ে চলুন। এর বদলে বেছে নিন বাদামি চাল, বাদামি আটাসহ এ জাতীয় খাদ্যশস্য।

অতিরিক্ত মিষ্ট পদার্থ ও তেল ব্যবহার হয় এমন খাবার এড়িয়ে চলুন। এগুলো বেশ লোভনীয় হলেও স্বাস্থ্যের জন্য উপকারি নয়। এ সব খাবার তলপেট, ঊরুসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত মেদ জমিয়ে দেয়।

যদি মেদ ঝরাতে চান, তবে প্রতিদিন পর্যাপ্ত পানি পান করুন। অবশ্যই নিয়মিত বিরতিতে পান করবেন। এটি হজম প্রক্রিয়ায় দারুণ ভূমিকা রাখে। শরীর থেকে ক্ষতিকর উপাদান দূর করে।

প্রতিদিন সকালে ২-৩ কোয়া রসুন চিবিয়ে খান। এর পর এক গ্লাস লেবুর শরবত পান করুন। এটি শুধু মেদ কমাতেই সাহায্য করে না, রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতেও ভাল ভূমিকা পালন করে।

নন-ভেজ বা মাংসজাতীয় খাদ্য এড়িয়ে চলুন। খুব বেশি খেতে ইচ্ছা হলে অল্প পরিমাণে সপ্তাহে একদিন খান। যদি সম্ভব হয় বিশেষজ্ঞের সাহায্য নিয়ে ডায়েট চার্ট তৈরি করুন।

প্রতিদিন সকাল-বিকেলে ফলমূল ও সবজি দিয়ে উদরপূর্তি করুন। এর অনেক উপকার। নগদ গুণাগুণ হল এতে আছে এ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, খনিজ ও ভিটামিন।

দারুচিনি, আদা ও গোলমরিচ ব্যবহার করুন রান্নায়। এ সব মশলায় আছে দারুণ উপকারিতা। এগুলো রক্তের চিনি ও ইনসুলিনের ভারসাম্য রক্ষা করে।

নিউজ পেজ২৪/আরএস