লাইফ স্টাইল

সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৫, ৭:৪৫ অপরাহ্ন

বেতন বাড়লে ধূমপান কমে?

নিউজপেজ ডেস্ক

বেতন রাড়লে ধূমপান কমে যায় বলে মন্তব্য করেছেন ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হেলথ্ কেয়ার বিভাগ।

ধূমপান কত ভাবেই না শরীরের ক্ষতি করে! তা, যতই সে কথা বোঝানো হোক, স্মোকাররা কি সৎ উপদেশকে পাত্তা দেন? ঠিকই দেবেন, এক বার শুধু তাদের বেতন বাড়িয়ে দেওয়া হোক! তা হলেই কমপক্ষে শতকরা ১৭ থেকে ২০ ভাগ ধূমপান কমিয়ে দেবেন তারা!

এমনিতে অবশ্য এ সব গবেষণার ব্যাপারে মার্কিন মুলুকের একটা বদনাম আছেই। সারা বছর ধরে ওই দেশ না কি হরেক আজগুবি গবেষণাপত্র ছাপিয়েই থাকে।

ওই ধারাতেই কি নতুন সংযোজন এ বার বাড়তি বেতন আর ঘাটতি ধূমপানের এই আনুপাতিক সম্পর্ক?

ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হেলথ্ কেয়ার বিভাগে গবেষণারত পল লেগ জানতেন, এই প্রশ্নটা উঠবেই। তাই রীতিমতো কোমর বেঁধে, কয়েক দফা সমীক্ষার পরে তবেই তিনি তার মতামত প্রকাশ করেছেন।

অ্যানালস অব এপিডেমিওলজির জার্নালে প্রকাশিত তার গবেষণার মোদ্দা কথাটা ঘুরে-ফিরে আঙুল তোলে সেই অমোঘ সামাজিক সমস্যার দিকেই— দারিদ্র্য!

লেগের গবেষণাপত্র ধাপে ধাপে বুঝিয়ে দিচ্ছে ব্যাপারটা। নিম্ন আয় থেকে জন্ম নেয় দারিদ্র্য। আর এই দারিদ্র্য পরের ধাপে জন্ম দেয় শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর হরেক বদ অভ্যাস।

সেগুলোর মধ্যেই সব থেকে বেশি চোখে পড়ে এই ধূমপানের অভ্যেস। তাই সব কলকারখানা, অফিস এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের কাছে লেগের দাবি, এক বার ধূমপায়ী কর্মচারীর বেতন বাড়িয়ে দিয়েই দেখুন না!

লেগ গ্যারান্টি দিয়ে বলছেন, পয়সাটা জলে যাবে না। তার সমীক্ষায় স্পষ্ট দেখা গিয়েছে, মাত্র ১০ শতাংশ বেতন বাড়ালেই প্রায় শতকরা ২০ ভাগ ধূমপান কমিয়ে দিচ্ছেন স্মোকাররা।

এর পিছনে লুকিয়ে থাকা মানসিক কারণটাও বুঝিয়ে দিয়েছেন তিনি। নিম্ন উপার্জন থেকে যে হতাশা তৈরি হয়, তা ভুলতেই না কি কাজ ফেলে বার বার ধূমপানে যান কর্মীরা।

বেতন বাড়ালে সেই কাজের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা সেই হতাশা যেমন কমবে, তেমনই কাজের প্রতিও উৎসাহিত হবেন কর্মচারীরা, দাবি করেছেন লেগ।

তবে তিনি জানাতে ভোলেননি, এই পন্থা কাজে দেবে শুধু পুরুষদের ক্ষেত্রেই! মহিলাদের বেতন যতই বাড়ানো হোক না, ধূমপায়ী হলে তারা মনের সুখে সেই উপার্জনে ধোঁয়া ছেড়েই যাবেন।

২১ থেকে ৬৫ বছর বয়স পর্যন্ত যে সব পুরুষদের নিয়ে এই সমীক্ষা চালিয়েছেন লেগ, দেখা গিয়েছে তাদের সব্বাই সাড়া দিয়েছেন এই পদ্ধতিতে।

বেশ কয়েক বছর ধরে ব্যাপারটা লক্ষ করেছেন গবেষক। অবাক হয়ে দেখেছেন, প্রত্যেক বছর যতই বেতন বেড়েছে, ততই ধূমপান কমিয়ে দিয়েছেন নিম্ন উপার্জনকারী পুরুষেরা।

ক্যালিফোর্নিয়া না হয় লেগের দেখিয়ে দেওয়া পথে হেঁটে কর্মচারীদের ধূমপানের বদ অভ্যেস কিছুটা হলেও কমিয়েছে। কিন্তু, ভারত? তৃতীয় বিশ্বের এই দেশে তো দারিদ্র্য আর বেতন দুটোই চরম হতাশাজনক! তার কী হবে?

নিউজ পেজ২৪/আরএস