মিডিয়া

এপ্রিল ৫, ২০১৬, ১১:৪০ অপরাহ্ন

জামিন পেলেন বেগম জিয়া

নিউজ পেজ ডেস্ক

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও গুলশানে নাশকতার দুই মামলা ও শহীদদের সংখ্যা নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে করা রাষ্ট্রদ্রোহ মামলাসহ চার মামলায় জামিন পেলেন বেগম খালেদা জিয়া। চার বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের পর তিনি জামিন পান।

এছাড়া গ্যাটকো মামলায় জামিন বহাল রেখেছেন অপর বিচারিক আদালত। আদালতে বেগম জিয়ার আত্মসমর্পণের প্রেক্ষাপটে আগে থেকেই সেখানে মোতায়েন করা হয় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর বিপুল সদস্য।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় যাত্রাবাড়ী থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা মামলায় আত্মসমর্পণ করতে গুলশানের বাসভবন থেকে কড়া নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে পৌঁছান বেগম খালেদা জিয়া। এসময় বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা জড়ো হয়ে তার পক্ষে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

গতবছর ২৩ জানুয়ারি বিএনপির কর্মসূচি চলাকালে যাত্রাবাড়ী এলাকায় যাত্রীবাহী বাসে পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যার অভিযোগে হত্যা, বিস্ফোরক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে ২টি মামলা দায়ের করে পুলিশ।

গত ৩০ মার্চ বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়ের করা মামলায় আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির ৫দিন পর আত্মসমর্পণ করলেন বেগম খালেদা জিয়া। যাত্রাবাড়ী থানায় জামিন দেয়াসহ গ্যাটকো দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার জামিন বহাল রাখেন আদালত।

অপর ৩ মামলায় আত্মসমর্পণ করে জামিন নিতে বেলা সাড়ে ১১টায় ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত থেকে সিএমএম কোর্টে যান বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। এসময় আদালত প্রাঙ্গণ ঘিরে রাখেন আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে দায়ের করা রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় সিএমএম কোর্টে বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে জামিন শুনানি করা হয়। এছাড়াও গুলশান থানায় দায়ের করা নাশকতার ১টি মামলাসহ যাত্রাবাড়ী থানায় দায়ের করা হত্যা ও বিস্ফোরক আইনের মামালায়ও আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন বেগম খালেদা জিয়া। ৩ জন বিচারক মামলাগুলোর শুনানি শেষে জামিন মঞ্জুর করেন।

পরে রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী আব্দুল্লাহ আবু সাংবাদিকদের বলেন, 'যেহেতু বেগম খালেদা জিয়া একটি দলের নেত্রী। তাঁর ডাকে হরতাল-অবরোধ ডাকা হয়েছিল এবং হরতাল-অবরোধকে কেন্দ্র করে তাদের দলের নেতাকর্মীরা গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে, পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যা করেছে, নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছে। একটা স্থিতিশীল সরকারকে উৎখান করার ষড়যন্ত্র করেছে।'

আর বেগম জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, 'বহুবার বেগম খালেদা জিয়ার কার্যালয় ঘেরাও করা হয়েছে। তারই একটি ঘটনায় কে বা কারা একটি বোমা নিক্ষেপ করেছে। অথচ তারাই বেগম জিয়ার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। আমরা জামিন আবেদন করেছিলাম আদালত জামিন মঞ্জুর করেছেন।'

৫টি মামলায় আদালত জামিন মঞ্জুর করলে বেলা ১ টার পর আদালত প্রাঙ্গণ থেকে গুলশানের বাসভবনের উদ্দেশ্যে রওনা হন বেগম খালেদা জিয়া।

নিউজ পেজ২৪/আরএ.