প্রবাস

অগাস্ট ২৯, ২০১৬, ১:৫৬ অপরাহ্ন

বাংলাদেশের তরুণ গবেষকের সায়েন্টিস্ট অ্যাওয়ার্ড অর্জন

নিজস্ব প্রতিনিধি

বাংলাদেশের তরুণ গবেষক ড. অনিমেশ কুমার গাইন বন্যা ঝুঁকি ও পানি সংকট নিরসন বিষয়ে তাঁর গবেষণার স্বীকৃতিস্বরূপ ইউরোপিয়ান জিয়োসায়েন্সেস ইউনিয়ন (ইজিইউ) কর্তৃক প্রদত্ত প্রাকৃতিক দুর্যোগ বিভাগে ডিভিশন আউটস্ট্যান্ডিং ইয়ং সায়েন্টিস্ট অ্যাওয়ার্ড ২০১৬ অর্জন করেছেন।

ইজিইউ হচ্ছে জিয়োসায়েন্স বা ভূবিজ্ঞান বিষয়ক গবেষণার জন্য বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্ল্যাটফর্ম। যেখানে ১৩ হাজার ৬৫০ জনের অধিক আন্তর্জাতিক গবেষক ভূবিজ্ঞানের উৎকর্ষ সাধন ও মানব কল্যাণের প্রয়োগের লক্ষ্যে গবেষণারত। ইজিইউ প্রতি বছর ভূবিজ্ঞান বিষয়ক গবেষণায় উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য তরুণ বিজ্ঞানীদের বিশ্বব্যাপী সমাদৃত এ বিশেষ পুরস্কার প্রদান করে থাকে। এ বছর ইজিইউ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১৫ জন তরুণ গবেষককে প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনাসহ অন্যান্য বিষয়ে তাঁদের উদ্ভাবনীমূলক ও বহুমাত্রিক গবেষণাকর্মের জন্য এই আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রদান করেছে। প্রচলনের পর থেকে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বিভাগে এই প্রথম কোনো বাংলাদেশি তরুণ গবেষক এই আন্তর্জাতিক সম্মানে ভূষিত হলেন।

ইজিইউ ওয়েবসাইটে তাঁর এই অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তির বিষয়ে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘ড. গাইনের গবেষণার সবচেয়ে উদ্ভাবনী দিক হলো অংশগ্রহণমূলক পদ্ধতি এবং স্থানিক বিশ্লেষণ ব্যবহার করে প্রাকৃতিক দুর্যোগের সমন্বিত ঝুঁকি মূল্যায়ন। তাঁর গবেষণার প্রধান বিষয় জলবায়ু পরিবর্তনজনিত বন্যা বিপত্তি ও পানি সংকট এবং সমাজ ও পরিবেশের ওপর তার বিরূপ প্রভাব। তাঁর গবেষণার ফলাফল বাংলাদেশের ঝুঁকি ব্যবস্থাপনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও নীতিমালা প্রণয়নে গুরুত্ব বহন করে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও ঝুঁকির পাশাপাশি তিনি বিস্তৃত পরিসরে সমন্বিত পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা এবং পানি-শক্তি-খাদ্য নিরাপত্তা নেক্সাসসহ অন্যান্য ক্রস কাটিং বিষয়ে গবেষণা করছেন। তাঁর আন্তবিষয়ক ও বহুমাত্রিক গবেষণার ফলাফল ২০টিরও বেশি আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে। এই সমস্ত প্রকাশনায় তিনি পিএইচডির গবেষণাপত্র সুপারভিশনের পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞানীদের সঙ্গে একযোগে গবেষণা করেন। তিনি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান সাময়িকীতে নিয়মিত রিভিউয়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

গত এপ্রিলে (১৭-২২ এপ্রিল) অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় অনুষ্ঠিত ইজিইউ সাধারণ অধিবেশনের এক অনুষ্ঠানে অনিমেশ কুমার গাইনকে এই অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন।অ্যাওয়ার্ড সার্টিফিকেট
যেহেতু বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তনজনিত দুর্যোগপ্রবণ দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম ঝুঁকিপূর্ণ দেশ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে, সে ক্ষেত্রে অনিমেশ কুমার গাইনের গবেষণাকর্ম বাংলাদেশের প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। এ লক্ষ্যে অনিমেশ ইতিমধ্যে তাঁর বিভিন্ন স্তরের ও দেশের সহকর্মীদের সমন্বয়ে বাংলাদেশের সমন্বিত পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে একটি আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছেন যার অর্থায়ন করছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক লেভারহুল্মে ট্রাস্ট।
(বিস্তারিত: http://socialsciences.exeter.ac.uk/politics/research/projects/iwrm/)।

এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশের জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবিলায় সমন্বিত ও দীর্ঘমেয়াদি নীতিমালা প্রণয়নে কাজ করছেন।

অনিমেশ কুমার গাইন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরিবেশ বিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতক (২০০০-২০০৫) এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে পানি সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ে স্নাতকোত্তর (২০০৬-২০০৮) ডিগ্রি অর্জন করেন। পরবর্তীতে তিনি জলবায়ু পরিবর্তন বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ে যৌথভাবে ইতালির কা’ফস্কারি বিশ্ববিদ্যালয়, ভেনিস ও জার্মানির জাতিসংঘ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি (২০০৯-২০১৩) ডিগ্রি অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি জার্মানির বার্লিনের পোস্টডামে জিএফজেড-জার্মান রিসার্চ সেন্টার ফর জিয়োসায়েন্সে কর্মরত। একই সঙ্গে তিনি আন্তর্জাতিক মর্যাদাসম্পন্ন আলেকজান্ডার ফন হুমবোলট ফেলো হিসেবে গবেষণা করছেন।
অনিমেশ খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার সুন্দরবনসংলগ্ন পদ্মপুকুর গ্রামের শিক্ষক দম্পতি নিরাপদ গাইন ও মীরা দেবী গাইনের একমাত্র পুত্র। বর্তমানে তিনি জার্মানির বার্লিন শহরে সস্ত্রীক বসবাস করছেন।

(অ্যাওয়ার্ডের বিস্তারিত: www.egu.eu/awards-medals/division-outstanding-young-scientists-award/2016/animesh-kumar-gain/)।


নিউজপেজ২৪/ এন এ