জাতীয়

মে ১, ২০১৭, ১২:৫৭ অপরাহ্ন

আজ আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস বা মে দিবস

নিউজপেজ ডেস্ক

কেউ খালি গায়ে মাঠে ‍কাজ করেন আবার কেউ কাজ করেন শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত রুমে। কিন্তু যেভাবেই কাজ করুন কেন না প্রতিষ্ঠানের মালিক না হলে তিনি শ্রমিক হিসেবে গণ্য হন। প্রতি বছর মে মাসের প্রথম দিনটি পালন করা হয় শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের দিবস হিসেবে। যা শ্রমিক দিবস বা মে দিবস নামে বিশ্বব্যাপী পরিচিত। বছরের এ দিন শ্রমিকরা শ্রেণি বৈষম্যের অবসানের লক্ষ্যে সংকল্পবদ্ধ হন। অধিকার আদায়ে শ্রমিকরা রাজপথে নেমে আসেন। তুলে ধরেন নিজেদের বৈষম্য ও চাহিদার কথা।

মে দিবসের সূত্রপাত হয় ১৮৮৬ খ্রিস্টাব্দের পহেলা মে। সেদিন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের হে মার্কেটের সামনে দৈনিক ৮ ঘণ্টা কাজের দাবিতে হাজারো শ্রমিক জড়ো হয়েছিলেন। পুলিশ শ্রমিকদের ওপর গুলিবর্ষণ করে। এতে ১০-১২ জন নিরীহ শ্রমিক প্রাণ হারান।

তিন বছর পর ১৮৮৯ সালের ১৪ জুলাই প্যারিসে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক শ্রমিক সম্মেলনে শিকাগো ট্র্যাজেডিকে ‘আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস’ হিসেবে পালন করার ঘোষণা দেয়া হয়। সেই থেকে আজ অবধি শ্রমিকের ন্যায়সঙ্গত অধিকার আদায়ের সংগ্রামী চেতনার অমিত তেজ সঞ্চারের দিন হিসেবে এ দিবসটি পালিত হয়ে আসছে।
বিশ্বের প্রায় ৮০টি দেশের পাশাপাশি বাংলাদেশেও দিনটি সরকারি ছুটি ও বিশেষভাবে পালন করা হয়। এবার ১৩১তম দিবস হিসেবে বাংলাদেশ ও বিশ্ববাসী পালন করছে। এ বছর মে দিবসে বাংলাদেশের প্রতিপাদ্য

‘শ্রমিক-মালিক গড়ব দেশ; এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।’

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাণী দিয়েছেন।
দিবসটি উপলক্ষে বিকেলে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

সকালে আয়োজন বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রাটি দৈনিক বাংলার মোড়ের শ্রম ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর পাশ দিয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে শেষ হয়।
ঐতিহাসিক ঘটনাসমৃদ্ধ মহান মে দিবস রাষ্ট্রীয়ভাবে উদযাপন উপলক্ষে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় ১ মে এবং ১১ মে কর্মসূচি নিয়েছে।

মে দিবস উদযাপনের অংশ হিসেবে এবছর সরকার প্রথমবারের মতো শ্রমিকদের মেধাবী সন্তানদের শিক্ষা সহায়তা প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছে। বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের তহবিল থেকে আসছে ১১ মে শ্রমিকদের মেধাবী সন্তানদের মধ্যে আর্থিক সহায়তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী।

দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে শ্রম ভবন, বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র ও রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক দ্বীপ ব্যানার, ফেস্টুন ও প্লা-কার্ড দিয়ে সাজানো হয়েছে।

এছাড়া বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে বিস্তারিত কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে শ্রমিক সমাবেশ, শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা, সেমিনার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ।


নিউজপেজ২৪/ এন এ